মেনু নির্বাচন করুন

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

                         ০১। নামঃ মৃত- চাই থোয়াই রোয়াজা।

                         পিতাঃমৃত- নিচাই প্রু রোয়াজা।

মাতাঃ মৃত- চুনিলা মার্মা

  মৌজাঃ৯৮নং কচুখালী মৌজা।

  জন্মঃ১৯৩০ইং।

  মৃত্যুঃ ১৯ জানুয়ারী ১৯৯৪ ইং।

জাতীয়াতাঃ বাংলাদেশী।

ধর্মঃ বৌদ্ধ।

সম্প্রদায়ঃ মারমা।

স্থায়ী ঠিকানাঃগ্রাম-হেডম্যানপাড়া, ডাকঘর-কলমপতি, উপজেলা-কাউখালী, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা।

 

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ

          এস.এস.সি (Entrance) পাশ রাঙ্গামাটি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় হইতে ১৯৫ সালে পাশ করেন। চট্টগ্রামের কানুগো কলেজে বিজ্ঞান বিভাগে আই এস সিতে ভর্তি হন। পরবতীতে পারিবারিক কারণে হেডম্যানর দায়িত্বনিতে হয়েছে বিধায় পড়াশুনা করা আর সম্ভব হয়নি।

 

দায়িত্বঃ

(ক) হেডম্যান ১৯৫৩ হইতে ১৯৯৪ পর্যন্ত আজীবন।

(খ) চেয়ারম্যান (সরকারী সূত্রমতে ১৯৫৯ হইতে ১৯৭১সাল পর্যন্ত) তখনকার সময় বর্তমান কাউখালী উপজেলা একটাই ইউনিয়ন কাউন্সিল যা কলমপতি ইউনিয়ন কাউন্সিল নামে পরিচিত।

 

অবদানঃ

(ক) সমবায় আন্দোলন (সমিতির গঠনের মাধ্যমে)

(খ) বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন। উল্লেখ্য নিম্ন কচুখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য ভূমি দান।

(গ) কৃষি আন্দোলন (বিভিন্ন জায়গায় শক্তি চালিত সেচ, প্রকল্প গ্রহণ, উন্নত জাতের  বীজ, কীটনাশক ঔষুধ ও কৃষি সার সরবারাহের মাধ্যম)।

(ঘ) বর্তমান পোয়াপাড়া হাইস্কুল স্থাপনের বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন (তখনকার সময়  একটি মাত্র হাইস্কুল)।

(ঙ) সড়ক ও জনপথ, যোগাযোগের নেট-ওয়ার্ক গড়ে তুলেন (বর্তমানে কাউখালী থানাধীন প্রায় সকল রাসত্মা-ই তার আমলে গড়ে উঠে)।

(চ) ১৯৭১’র মুক্তিযুদ্ধের সময় সার্বিক সহযোগিতা প্রদান (মুক্তিযোদ্ধাদের আবাসন ব্যবস্থা, খাদ্য-রসদ যোগানসহ অন্যান্য তথ্যাদি প্রদান)।

 

এছাড়া ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশিস্নষ্ট থেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সমাজ উন্নায়নের জন্য আজীবন সমাজ সেবা করে গেছেন।

 

০২।নামঃস্নেহ কুমার দেওয়ান

পিতাঃ                       দীন মোহন দেওয়ান

মাতাঃ                       শশী কুমারী দেওয়ান

জন্ম তারিখঃ                ২০/০৩/১৯২৫ ইং

মৃত্য তারিখঃ               ১৮/০৮/২০০৫ইং

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ       ৭ম শ্রেণি,

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামঃরাঙ্গামাটি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়।

স্থায়ী ঠিকানাঃ গ্রামঃ দেওয়ান পাড়া, ডাকঘরঃ ঘাগড়া, উপজেলা-কাউখালী, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা।

কর্মকাল ও অবদান

পিতার মৃত্যুর পর ১৯৫৩ ইং সনে ৯৯ নং ঘাগড়া মৌজার হেডম্যান নিযুক্ত হন।  ১৯৫৩ ইং সন থেকে  র্দীঘ ৫২ বৎসর সময়কাল ধরে তিনি এই দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে  পালন করেন। এর মধ্যে ১৯৬০সনে ঘাগড়া সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করেন।  ১৯৭১ সনে ঘাগড়া স্বদ্বর্ম বৌদ্ধ বিহার প্রতিষ্ঠা এবং  ১৯৭৩সনে ঘাগড়া জামে মসজিদ ও মন্দির প্রতিষ্ঠাতে সহযোগীতা করেনে।  ১৯৬৮ সনে ঘাগড়া বাজার স্থাপন করেন। ১৯৭৫-১৯৭৬ সনে তৎকালীন স্বনির্ভর প্রকল্পের আওতায় মঘাছড়ি, যৌথ খামার ও চম্পাতলী যৌথ খামার স্থাপন করে তথায় অনেক ছিন্ন মূল লোকজনকে পৃনর্বাসন করেন। ১৯৭৭-১৯৭৮ সনে রাঙ্গামাটি টেক্সটাইল মিলস স্থাপনের সময় সরকারের সহযোগী উদ্যোক্তা হিসাবে কাজ করেন। সে সময় মাননীয় জেলা প্রশাসক ছিলেন জনাব আলী হায়দার খান। পাশাপাশি অত্র এলাকায় শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে  ঘাগড়া জুনিয়ার স্কুল প্রতিষ্টা করেন। পরে তা ঘাগড়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় নামে প্রতিষ্ঠিত হয়।  মাধ্যমিক স্কুল প্রতিষ্ঠার পরেও তিনি ক্রান্ত হননি বরং এলাকার জনগন আরো অধিকতর শিক্ষা লাভ করার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে অত্র এলাকায় উচ্চ মাধ্যমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে   ঘাগড়া কলেজ প্রতিষ্টার কাজে সহযৌগিতা করে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন। ১৯৮৯ সনের ২৫জুন স্থানীয় সরকার পরিষদের সম্মানিত সদস্য হিসেবে  নির্বাচিত হন। র্দীঘ ৫ বৎসর স্থানীয় সরকার পরিষদের সদস্য হিসাবে দায়িত্ব সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন। মৃত্যুর আগে তিনি তাঁর নিজের সম্পত্তির উপর ঘাগড়া বালিকা বিদ্যালয় স্থাপন করে এলাকায় নারী শিক্ষা প্রশারে যুগান্তকারী ভূমিক রাখেন।  সর্বপরি তিনি  অত্র ইউনিয়নে ধর্ম, বর্ণ, গোত্র সবার কাছে একজন প্রক্কাত ব্যক্তিত্ব  হিসেবে সুপরিচিত।